1. ayanabirbd@gmail.com : সামিয়া মাহজাবিন :
বুধবার, ১২ অগাস্ট ২০২০, ০৮:৪৯ অপরাহ্ন

৫ বছরের অমুসলিম শরণার্থী হলেই ভারতে মিলবে নাগরিকত্ব

অনিরুদ্ধ হাসান
  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নবায়নের মধ্যদিয়ে ভারতে হিন্দুসহ অমুসলিম শরণার্থীদের বিরাট সুযোগ দিতে চলেছে সেদেশের সরকার। প্রতিবেশী তিন দেশ বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ভারতে পাড়ি জমানো অমুসলিমরা সহজেই যাতে সে দেশের নাগরিক হতে পারেন এজন্য বিলে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হচ্ছে । সেখানে একটানা মাত্র ৫ বছর অবস্থান করলেই তারা ভারতের নাগরিক হিসাবে বিবেচিত হবেন।নতুন নগরিকত্ব সংশোধন বিলে এমনটাই বলা হয়েছে।


মাত্র পাঁচ বছর আগে ভারতে আসলেই নাগরিকত্ব পেয়ে যাবেন প্রতিবেশী দেশগুলোর অমুসলিমরা। আগামী সোমবার ভারতীয় সংসদে এই নাগরিকত্ব বিলটির নবায়নকৃত রুপটি উত্থাপন হতে চলেছে।

এর আগে ভারতের নাগরিকত্ব পেতে কোনও শরণার্থীকে কমপক্ষে ১১ বছর সে দেশে থাকতে হত। গত বছর সেই সময়সীমা কমিয়ে ৬ বছর করা হয়েছিল। এবছর তা আরও কমিয়ে ৫ বছর করা হবে বলে জানা গেছে।

[] কী থাকছে নতুন বিলে []

নতুন বিলে শর্ত দেওয়া হয়েছে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর বা তার আগে বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান থেকে যে সমস্ত অমুসলিম শরণার্থীরা ভারতে এসেছেন, তাদের প্রত্যেককেই নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। তবে হিন্দু, খ্রিস্টান, শিখ, বৌদ্ধ, পারসি, জৈন কেবল এই ছয় ধর্মীয় সম্প্রদায়ের লোকজনকেই নাগরিকত্ব দেবে ভারত। মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজনের ব্যাপারে ওই বিলে কিছু বলা হয়নি। এর অর্থ হচ্ছে, নতুন এই বিলে কোনো মুসলিমকে ভারতের নাগরিকত্ব লাভের অধিকার দেয়া হবে না। তবে ওই ৬ সম্প্রদায়ের লোকজন যারা ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে থেকে ভারতে বসবাস করছেন, তারা ভারতের নাগরিকত্ব পেয়ে যাবেন।

১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করেই এই নতুন সংশোধনী আনা হচ্ছে। ১৯৫৫ সালের আইন অনুযায়ী, শরণার্থীদের ভারতের নাগরিকত্ব পেতে কমপক্ষে ১১ বছর দেশটিতে থাকতে হতো। কিন্তু, নতুন বিল বলছে, মাত্র ৫ বছর ভারতে থাকলেই নিঃশর্তে নাগরিকত্ব পেয়ে যাবে অমুসলিমরা। এক্ষেত্রে, শুধুমাত্র নিজেকে অমুসলিম বলে হলফনামা জমা দিলেই চলবে। কোনোরকম কাগজপত্রে জোগাড়ের ঝামেলাতেও পড়তে হবে না।

তবে দেশটির রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে নাগরিকত্ব দিতেই এমন নিয়ম আনতে চাইছে বিজেপি। এতে রাজনৈতিকভাবে বেশ খানিকটা সুবিধা পেয়ে যাবে গেরুয়া শিবির। বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে হিন্দুদের যাতে কোনওরকম সমস্যায় পড়তে না হয়, তা নিশ্চিত করার জন্য বেশ কয়েকবার কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারস্থ হয়েছিলেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। সেকারণেই হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য বিলে এই বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে।


@ UTV সাইটে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর