1. ayanabirbd@gmail.com : সামিয়া মাহজাবিন :
বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন

চিতলমারী অবৈধ পোল্ট্রি খামারে পরিবেশ দূষণে ভুক্তভোগীরা প্রতিকার চায়

মোঃ একরামুল হক মুন্সী
  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার খড়মখালী পুর্বপাড়া গ্রামের প্রভাবশালী ব্যবসায়ী চিন্ময় পোদ্দার জনবসতিপূর্ণ এলাকায় অবৈধ পোল্ট্রি মুরগির খামার করে পরিবেশ দূষণ করছে। দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। সেখান থেকে রোগব্যাধি ছড়াচ্ছে। প্রতিবেশিরা অসুস্থ থাকছে প্রায়ই।


শনিবার ভুক্তভোগী এক দরিদ্র পরিবার অভিযোগ করেন, এই বিষয়ে বিভিন্ন জায়গায় নালিশ করায় ওই প্রভাবশালী ব্যবসায়ী তার রান্না ঘর সহ প্রায় পাঁচ শতক জায়গা দখল করে নিয়েছে। এই বিষয়ে উপজেলা সেনেটারি কর্মকর্তা, বাগেরহাট পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। কিন্তু কোন প্রতিকার না পেয়ে দরিদ্র ভুক্তভোগী সুকুমার পোদ্দার এখন দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

শনিবার সাংবাদিকদেও কাছে নিজেরসহ গ্রামের মানুষের ওই দুর্ভোগের কথা তুলে ধরেন খড়মখালী (পুর্বপাড়া) গ্রামের ব্রজমোহনের ছেলে সুকুমার পোদ্দার। তিনি কেঁদে কেঁদে বলেন, ‘দুর্গন্ধ হতে বাচতে এখন এলাকা ছেড়ে চলে যেতে হবে! বিয়ের বয়স হলেও ছেলে-মেয়ের বিয়ে দিতে পারছি না। দুর্গন্ধ পরিবেশে কেউ বিয়ের সম্বন্ধ করতে আসে না। বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ দেয়ার ফলে রাগে চিন্ময় পোদ্দার আমার রান্নাঘরসহ পাঁচ শতক জায়গা দখল করে ফার্মের জায়গা বাড়িয়েছে। এই বিষয়ের সংশ্লিষ্ট চরবানিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ হতে এই বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে উপজেলা সেনেটারি কর্মকর্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে।

গ্রামের বয়স্ক প্রতিবেশি মহেন বিশ্বাস (৮৫) বলেন, নিজের ব্যবসার জন্য অপরের ক্ষতি করা অন্যায়। এর প্রতিকার হওয়া উচিত।

এই বিষয়ে চিতলমারী উপজেলা সেনেটারি কর্মকর্তা বিজয় কুমার মন্ডল জানান, মানুষের বাসযোগ্য স্থানের পাঁচশ গজের মধ্যে পরিবেশ দূষণকারী মুরগি ফার্ম করা আইনে নিষেধ। কিন্তু তারপরেও উপজেলার খড়মখালী পূর্বপাড়া গ্রামে বাপী লেয়ার ফার্ম পরিবেশ দূষণ করে চলেছে। ফার্মের দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ ওই গ্রামের সুকুমার পোদ্দারের লিখিত অভিযোগ পেয়ে ফার্মের মালিককে নোটিশ করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি এসবের তোয়াক্কাই করেননি।

বাপী লেয়ার ফার্মের প্রভাবশালী মালিক শান্তিরঞ্জন পোদ্দারের ছেলে চিন্ময় পোদ্দার দাবী করেন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয় হতে অনুমতি নিয়ে তিনি ব্যবসা করছেন। কিন্তু তিনি কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। প্রায় তিন হাজার মুরগি রয়েছে তার ফার্মে।


@utv.click এর অনলাইন সাইটে প্রকাশিত কোন কন্টেন্ট, খবর, ফুটেজ কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর