ঢাকাসোমবার , ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইউ কৃষি
  6. ইউ মিউজিক
  7. ইউ স্পোর্টস
  8. ইউটিভি পরিবার
  9. ইয়ুথ ব্লেন্ড
  10. উদোক্তা
  11. উৎসব
  12. এককাপ চা
  13. এক্সক্লুসিভ
  14. খেলা
  15. গণমাধ্যম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শার্শায় ভুল সিজারে প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

প্রতিবেদক
আইউব হোসেন পক্ষী, শার্শা প্রতিনিধি
সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২২ ১২:০৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়ায় আখি টাওয়ারের দ্বিতীয় তলায় অবস্থিত আল মদিনা প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নাসরিন খাতুন (২০) নামে এক প্রসূতির ভুল সিজারে মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।
রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে সিজারের মাধ্যমে এক কন্যা সন্তান হয়। প্রসূতিকে আশংকাজনক অবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে এ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে মারা যায়। মৃত প্রসূতি ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের কুমরী গ্রামের রিপনের স্ত্রী।
মৃত নাসরিনের মা জানায়, মেয়ের সিজার করা হয় আল মদিনা প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। সিজারের পরে মেয়ের অবস্থা খারাপ হতে থাকে। দ্রুত সাতক্ষীরা নিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে মারা যায়। তারা টাকার লোভে, ভুল চিকিৎসার কারণে আমার মেয়ে মারা গেছে।
নিহত প্রসূতির স্বামী রিপন জানান, ডাক্তারদের টাকার লোভে তাদের ভুল চিকিৎসার বলি হতে হলো আমার স্ত্রীকে। এ ঘটনায় চিকিৎসক ডাঃ আব্দুল মজিদ মোবাইল ফোন রিসিভ করেনি। তিনি আরো বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলছে হার্ডে সমস্যা ছিল তাই এমন হয়েছে। আগে সমস্যা ছিল না, টাকার লোভে সিজার করে এখন মারা গেছে বলে মিথ্যা কথা বলেছে, আমি স্ত্রীর মৃত্যুর সঠিক বিচার চাই।
উলাকোল এবং কুমরী ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ ও আসাদুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের অবৈধ হাসপাতাল সরকার রাখার কারণে অল্প বয়সে অনেক গর্ভবতী মাকে মৃত্যুর মুখে পড়তে হচ্ছে।
এ ঘটনার পর পরই আল-মদিনা প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে গা ঢাকা দিয়েছেন ডাক্তার ও কর্মচারীরা। বারবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
এ ঘটনায় শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবু ইউসুফ জানান, খবর পেয়ে যশোরের সহকারী সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে আল-মদিনা প্রাইভেট হাসপাতালে রোগী মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখে অপারেশন থিয়েটার সিলগালা করা হয়েছে। এ ধরনের অবৈধ হাসপাতাল বা ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।
উল্লেখ্য, একাধিক বার এ ক্লিনিক সিলগালা করা হলেও আবার প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ক্লিনিকের কার্যক্রম চালিয়ে যায়। যার ভুক্তভোগী হয় অসহায় সাধারন রোগীরা।