ঢাকাশুক্রবার , ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ইউ কৃষি
  5. ইউ মিউজিক
  6. ইউ স্পোর্টস
  7. ইউটিভি পরিবার
  8. ইয়ুথ ব্লেন্ড
  9. উদোক্তা
  10. উৎসব
  11. এককাপ চা
  12. এক্সক্লুসিভ
  13. খেলা
  14. গণমাধ্যম
  15. গসিপ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিএনপির নির্বাচনে না যাবার সিদ্ধান্ত হবে আত্নহননের সমানঃ হাছান মাহমুদ

প্রতিবেদক
সুনীল কুমার দাস, ব্যুরো প্রধান (খুলনা)
সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ ২:৪১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। এখন আর আমাকে একটু বাসি ভাত দেন এমন কথা কোথাও শোনা যায় না। এখন কেউ একটাকা ভিক্ষাও নিতে চায় না। দেশের মানুষের অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে।

গত সাড়ে ১২বছরে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনেকটাই বদলে গেছে বাংলাদেশ। কিন্তু অনেকেরই তা পচ্ছন্দ হচ্ছে না।কেউ কেউ চিৎকার করছেন।আজকে শুনলাম বিএনপি নেতারা বলছে আওয়ামীলীগ সরকারের নেতৃত্বে আর কোন নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি। এরআগেও বিএনপি বলেছিল নির্বাচন করতে দেয়া হবে না। কিন্তু নির্বাচন হয়েছে এবং আওয়ামীলীগ সরকারের নেতৃত্বে ২০১৮সালে বিএনপি নির্বাচনেও অংশ গ্রহন করেছে। বিএনপি বার বার জলঘোলা করেই নির্বাচনে অংশ নেয়। আগামী নির্বাচনে বিএনপির না যাওয়ার সিদ্ধান্ত হবে তাদের আত্নহননের সামিল।অবশ্য যারা পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যেতে চায় তারা নির্বাচন বর্জন করে। বিএনপি পিছনের দরজা দিয়েই ক্ষমতায় যেতে চায়। তাদের এমন অভ্যাস আছে। দেশের জনগনের উপর আস্তা নেই বলেই নির্বাচনকে তারা ভয় পায়। শুক্রবার খুলনায় প্রধানমন্ত্রীর সাংবাদিক কল্যাণ তহবিল থেকে সাংবাদিকদের করোনাকালীন অনুদানের চেক বিতরন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের কল্যানে সাংবাদিক কল্যান ট্রাষ্ট গঠন করে করোনাকালীণ সময়ে সহায়তা করছেন। উপমহাদেশের কোন দেশেই কোন সরকার এমন উদ্যোগ নেয়নি। গতবছর সারা দেশের সাড়ে তিন হাজার সাংবাদিককে সাড়ে তিন কোটি টাকা এবং চলতি বছরে ১০কোটি টাকার অনুদান দিয়েছেন।কেরোনাকালীন সময়ে চাকরী আছে বেতন নেই এবং চাকুরী হারিয়েছেন তাদেরকেই সবাইকে এই অনুদানের আওতায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই অনুদান সবার জন্য উন্মুক্ত। যারা বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে লেখেন,অকারণে সমালোচনা করেন তাদেরও সহায়তা দেয়া হচ্ছে।আওয়ামীলীগের সরকার সবার সরকার সেটা সাংবাদিক কল্যান ট্রাষ্টের মাধ্যমে প্রমানিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী দেশকে একটি জনকল্যানমূলক রাষ্ট্রে পরিনত করতে চান সেজন্য বয়ষ্কভাতা, বিধবা ভাতা, স্বামীপরিথ্যক্তা ভাতা, দু:স্থ্যভাতা, মাতৃত্বকালীনভাতাসহ অনেক ভাতা চালু করেছেন। যা অনেক উন্নত দেশেও নেই। শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ এখন পাকিস্থান, ভারতকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গেছে। করোনাকালীন সময়ে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল পেয়ে তাকে কাজে লাগিয়ে জিডিপিতে আয় আড়াইশো বৃদ্ধি পেয়ে ভারতকে ছাড়িয়ে গেছি। অনলাইনে মিটিং, বানিজ্য, টিচিংসহ বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করে মানুষ সুফল পাচ্ছে। যা দেশের উন্নয়নে ভুমিকা রাখছে।

তিনি দেশকে এগিয়ে নিতে গনমাধ্যম ও সাংবাদিকদের সহায়তা কামনা করে বলেন, সরকারের সাফল্য ও উন্নয়নের সংবাদ তুলে ধরে মানুষকে আশাবাদী করতে হবে। অনিয়ম-দূর্নীতি ও সমস্যার সংবাদের পাশাপাশি সাফল্যের কথাও জনগনকে জানাতে হবে। তবেই সাফল্যগাথা অধিকতর মানুসের মধ্যে ছড়িয়ে পড়বে। এভাবেই দেশের সার্বিক উন্নয়নে সাংবাদিকরা সঠিক ভুমিকা রাখতে পারবেন।

এ সময় তিনি বলেন, ১৯৫৭সালে বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে দেশে সিনেমা শিল্প চালু হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিনেমা শিল্পের উন্নয়নে প্রকল্প হাতে নিয়েছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্নাঙ্গ টেলিভিশন কেন্দ্র চালু, সিনে কমপ্লেক্সসহ একটি তথ্য কমপ্লেক্স ভবন নির্মান এবং স্থানীয় সংবাদপত্রগুলির সুবির্ধাথে খুলনা নিউজপ্রিন্ট মিল চালুর আশ্বাস দেন।

খুলনার জেলা প্রশাসক মো: মনিরুজ্জামান তালুকদারের সভাপতিত্বে সাংবাদিকদের চেক প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন প্রমুখ। পরে তথ্যমন্ত্রী অনুদানপ্রাপ্ত ৭৫জন সাংবাদিকদের মাঝে চেক বিতরন করেন।

এরআগে তথ্যমন্ত্রী বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্রে অবস্থিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অপর্ন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।এ সময় তিনি বেতারের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং বেতার কেন্দ্র ঘুরে দেখেন। পরে তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন কেন্দ্র সরেজমিন পরির্দশন করেন।