ঢাকাশুক্রবার , ১২ নভেম্বর ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইউ কৃষি
  6. ইউ মিউজিক
  7. ইউ স্পোর্টস
  8. ইউটিভি পরিবার
  9. ইয়ুথ ব্লেন্ড
  10. উদোক্তা
  11. উৎসব
  12. এককাপ চা
  13. এক্সক্লুসিভ
  14. খেলা
  15. গণমাধ্যম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের ইউপি ভোটঃ:
চলতি নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ৯২

প্রতিবেদক
অর্পিতা অর্পা
নভেম্বর ১২, ২০২১ ৮:০৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

কেন্দ্র দখল, ব্যালটে সিলমারা, ককটেল বিস্ফোরণ, দফায় দফায় সংঘর্ষ, টেঁটাযুদ্ধ, গুলি ও মারামারির মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।

গতকালের নির্বাচনী সহিংসতায় বিভিন্ন স্থানে নিহত হয়েছেন ৭ জন এবং আহত শতাধিক। চলতি বছর জানুয়ারি থেকে বিভিন্ন নির্বাচনী সহিংসতায় এ পর্যন্ত ৯২ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

গতকাল দ্বিতীয় ধাপে দেশের ৮৩৪টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এতে সহিংসতায় নরসিংদীতে ৩ জন, কক্সবাজারে ১ জন, চট্টগ্রামে ১ জন ও কুমিল্লায় ২ জনসহ মোট ৭ জন নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন শতাধিক। তবে অনেক ইউনিয়নেই সুষ্ঠুভাবে ভোট সম্পন্ন হয়েছে। চলমান ইউপি নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করেনি, তাই নির্বাচনী সংঘর্ষ আওয়ামী লীগ মনোনিত ও তাদের দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে সংঘঠিত হয়েছে। এছাড়া এলাকাভিত্তিক প্রার্থীদের প্রভাব বিস্তার নিয়েও সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।

দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮টি ইউনিয়নের ৮৩৪টি ইউনিয়নে ভোগ গ্রহণ হয়েছে। এরমধ্যে কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে সব পদে বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় নির্বাচিত হওয়ায় এই উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে কোনো ভোটগ্রহণ হয়নি। এছাড়া ৭টি ইউনিয়নের ভোট স্থগিত ও ১টি বাতিল করা হয়েছে। ২৬টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ হয়েছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে। বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় ৮১টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে, সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ৭৩ জন ও সাধারণ আসনের সদস্য পদে ২০৩ জন নির্বাচিত হয়েছেন। প্রথম ধাপে ৭৩ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় নির্বাচিত হয়েছেন।


বেসরকারি সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক)-এর তথ্যমতে এ বছরের জানুয়ারি থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন এলাকায় অনুষ্ঠিত ইউপি, উপজেলা, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৪৬৯টি সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন ৬ হাজার ৪৮ জন এবং নিহত হয়েছেন ৮৫ জন। নিহতদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ৪১ জন, বিএনপির ২ জন, সাধারণ মানুষ ২২ জন, পুলিশের গুলিতে ১৫ জন এবং একজন সাংবাদিক মারা গেছেন। গতকাল নির্বাচনে ৭ জন নিহত নিয়ে মোট মারা গেছেন ৯২ জন। সহিংসতাগুলো বেশিরভাগই ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে সংঘঠিত হয়েছে।

নরসিংদীর রায়পুরার বাঁশগাড়ীতে নিহত ৩, আহত ৩০ : স্টাফ রিপোর্টার, নরসিংদী জানান, দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চল বাঁশগাড়ি ইউনিয়নে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে গুলি ও টেঁটাবিদ্ধ হয়ে ৩ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো অন্ততঃ ৩০ জন। গতকাল ফজরের নামাজের পর এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।


নিহতরা হলো নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আশরাফুল হক সরকারের সমর্থক বটতলীকান্দী গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে দুলাল মিয়া (৩৭), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (টেলিফোন মার্কা) রাতুল হাসান জাকিরের সমর্থক বালুয়াকান্দী গ্রামের হেকিম মিয়ার পুত্র সালাহ উদ্দিন (৩০) ও সোবহানপুর গ্রামের হক মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর (২৭)।

এদিকে পার্শবর্তী মির্জাচর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান বিদ্রোহী প্রার্থী জাফর ইকবাল মানিক ও নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ফিরোজ মিয়ার সমর্থকদের মধ্যে সঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। আমিরগঞ্জ ইউনিয়নের করিমগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নলবাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং বালুয়াকান্দী উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র সংঘর্ষের ঘটনায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সাইফুল (৩০), ফালু (৩৫), আল আমিন (৩৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। বালুয়াকান্দী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক হামলাকারীরা ভেঙ্গে দিয়েছে।


চট্টগ্রামে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ১ আহত ২০; মহাসড়ক অবরোধ গুলি ব্যালট ছিনতাই জাল ভোট : দফায় দফায় সংঘর্ষ, মহাসড়ক অবরোধ, ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, ভোটকেন্দ্র দখল, ব্যালট বাক্স ছিনতাই ও জাল ভোটের মধ্যদিয়ে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি, মীরসরাই ও সীতাকুÐসহ তিনটি উপজেলার ৩৯টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফটিকছড়িতে সহিংসতায় একজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া তিনটি উপজেলায় সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। ফটিকছড়ির লেলাং ইউনিয়নে ৮নং ওয়ার্ডের এমআরসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে নির্বাচনী সহিংসতায় মোহাম্মদ সফি (৫০) নামে এক ব্যক্তি ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরো ২ জন আহত হয়েছে। নিহত সফি স্থানীয় আনন্দ বাজারের ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় পুলিশ দুই মেম্বার প্রার্থী সরোয়ার ও বেলালকে আটক করেছে। এছাড়া বাগান বাজারের হলুদিয়া কেন্দ্রে মেম্বার প্রার্থী ছায়েদ আলীর লোকজন অপর প্রার্থী জসিম উদ্দীনের উপর হামলা চালায়। পাইন্দং ইউনিয়নের বেড়াজালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই ওয়ার্ড সদস্য প্রার্থী এমদাদ ও খোরশেদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া হয়। কাঞ্চননগর ইউনিয়নের একটি ভোটকেন্দ্রে দুই সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।


সীতাকুÐে পুলিশের উপর হামলা, ভোট কেন্দ্র দখলের চেষ্টা, অস্ত্র-ভাঙচুর, জাল ভোট, ব্যালট ছিনতাই ও সংঘর্ষের মধ্যদিয়ে ভোটগ্রহণ হয়েছে। এতে চারজন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ১৪ জন আহত হয়েছেন। দুটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। বাঁশবাড়িয়া এলাকা থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে হামলা করে বিদ্রোহীর প্রার্থীর কর্মী সমর্থকরা। এসময় তারা ইউনিয়ন পরিষদে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও গুলি বিনিময়ে তিনজন আহত হন। মীরসরাই উপজেলার খৈয়াছড়া ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীকের (স্বতন্ত্র) চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহেদ ইকবাল চৌধুরী হামলার শিকার হন।

কক্সবাজারে নির্বাচনী সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪ : কক্সবাজার জেলা সংবাদদাতা জানান, খুরুশকুল ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের তেতৈয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই মেম্বার প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে মেম্বার প্রার্থী শেখ কামাল আহত হয়েছে ও তার কর্মী আকতারুর জামান পুতু ( ৩০) নিহত হয়েছেস। খুরুশকুল ইউপি’র স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আমিন বলেন, ১ নং ওয়ার্ডের দুই মেম্বার প্রার্থী শেখ কামাল ও আবু বক্কর ছিদ্দিকের কর্মী সমর্থকদের ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুতু নামে শেখ কামালের এক কর্মী মারা গেছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরো ৪ জন।


নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ গুলিবিদ্ধ ৫ : বেগমগঞ্জের আলাইয়াপুর ইউনিয়নে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীসহ ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিদ্রোহী প্রার্থী আনিসুর রহমান।

কুমিল্লার মেঘনায় নির্বাচনী সিহংসতায় ২ জন নিহত : কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ২ জন নিহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছে অন্তত ১৫ জন। নিহতরা হলেনÑ মানিকারচর ইউনিয়নের ভল্লবেরকান্দি গ্রামের মোবারক হোসেনর ছেলে শাওন ও ভাওরখোলা ইউনিয়নের খিরাচক গ্রামের মৃত মুজাফফর ঢালীর ছেলে সানাউল্লা ঢালী। স্থানীয়রা জানান, দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ছোড়ে। এতে শাওন আহমেদ জসু মিয়া ও নাজমুল নামের তিনজন গুলিবিদ্ধসহ আহত হন অন্তত ১০ জন। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মেঘনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে শাওনসহ ৩ জনকে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়। এরমধ্যে শাওন পথেই মারা যায়।

ভাওরখোলা ইউনিয়নের খিরারচক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় সানাউল্লা নামে আরেকজন মারা যায়।


প্রকাশ্যে সিলমারার ভিডিও ধারণ, সাংবাদিকের ওপর হামলা : শরীয়তপুর সদর উপজেলার তুলাসার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রকাশ্যে সিলমারার ভিডিও ধারণ করায় সাংবাদিকের ওপর হামলা করা হয়েছে। আহত অবস্থায় সাংবাদিককে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে একটি কেন্দ্রের সামনের মাঠে এ ঘটনা ঘটে। আহত সাংবাদিক বি এম ইশ্রাফিল ডিবিসি টেলিভিশনের শরীয়তপুর প্রতিনিধি।

সাতক্ষীরা : সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের সংঘর্ষে নৌকার প্রার্থীসহ ১৮ জন আহত হয়েছেন। বৈকারি ইউনিয়নের খলিলনগর কেন্দ্রে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নৌকার প্রার্থী সমর্থকদের সাথে বিদ্রোহী প্রার্থী সমর্থকদের সংঘর্ষ বাঁধে। এতে নৌকার প্রার্থী অসলেসহ আটজন আহত হয়েছেন। এছাড়া, কাথন্ডা বিশ্বাস পাড়ায় ভোট কেন্দ্রিক সংঘর্ষে আহত হয়েছেন দশজন।


মাদারীপুরে সংঘর্ষ, শতাধিক বোমা বিস্ফোরণ : মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার সাহেবরামপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩নং ওয়ার্ডের আন্ডারচর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ব্যাপক বোমা বিস্ফোরণ, গোলাগুলি ও কেন্দ্র দখলের ঘটনা ঘটে।