ঢাকাশুক্রবার , ৭ জানুয়ারি ২০২২
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইউ কৃষি
  6. ইউ মিউজিক
  7. ইউ স্পোর্টস
  8. ইউটিভি পরিবার
  9. ইয়ুথ ব্লেন্ড
  10. উদোক্তা
  11. উৎসব
  12. এককাপ চা
  13. এক্সক্লুসিভ
  14. খেলা
  15. গণমাধ্যম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শরীয়তপুরে পরাজিত মেম্বার প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যা:
অব্যাহত আছে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা

প্রতিবেদক
ইউটিভি ডেস্ক
জানুয়ারি ৭, ২০২২ ৯:০৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শেষেও সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে। 

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় পরাজিত এক মেম্বার প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে অপর পরাজিত মেম্বার প্রার্থী ও তার সমর্থকরা। গত বুধবার নির্বাচনের দিন বগুড়ার বালিয়াদিঘী ইউপির কালাইহাটা ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সমর্থক ও পুলিশ-বিজিবির সংঘর্ষে আহত আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ওই ইউপিতে মোট সহিংসতায় মোট ৫ জনের মৃত্যু হল। এদিকে, সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় আরো অনেকে আহত হয়েছেন। ইউটিভি প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে প্রতিবেদন;

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার বালিয়াদিঘী ইউপির কালাইহাটা ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সমর্থক ও পুলিশ-বিজিবির সংঘর্ষ হয়। বিজিবির গুলিতে নিহত ইউপি নির্বাচনে মহিলা মেম্বার প্রার্থী কুলসুম আক্তার, খোরশেদ হোসেন, আলমগীর হোসেন ও আব্দুর রশীদের লাশ গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে বগুড়ার শজিমেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ময়নাতদন্তের পরে স্বজনদের হাতে হস্তান্তর করে।

পরে সন্ধ্যায় নিহতদের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। ঘটনাস্থলের বিবরণ দিয়ে সদ্য নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুস আলী ফকির জানান, কালাইহাটা গ্রামে এখনও চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী অহেতুক উত্তেজনা সৃষ্টি ও গুলিবর্ষণের জন্য ওই দিনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহানপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ আহম্মেদকে দায়ী করেছেন। এলাকাবাসীর অভিযোগ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উগ্র ও হটকারী আচরণেই এই নৃশংস হত্যাকান্ড ঘটেছে।

গত বুধবারের ঘটনার বিবরণ দিয়ে কালাইহাটা গ্রামের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বিগত সময়ে পরপর তিনবার ভোটে দাঁড়িয়েও পাস করতে পারেননি আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনুস আলী ফকির। ফলে একজোট হয়ে নৌকার প্রার্থীকে একচেটিয়া ভোট দিয়ে বিজয়ী করার সিদ্ধান্ত নেয়। মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ শেষ হয়। ভোট গননার সময় ভোটকেন্দ্রের বাইরে শত শত নারী পুরুষ ভোটার উৎসুক হয়ে ভিড় জমায়। ৫টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পুলিশ ও বিজিবিসহ ভোট কেন্দ্রে এসে জনতার ভিড় ক্লিয়ার করার নির্দেশনা দেন। নির্দেশনা পেয়ে পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা লাঠিচার্জ করে ভিড় কমাবার চেষ্টা করলে আওয়ামী লীগ সমর্থকসহ গ্রামবাসী উত্তেজিত হয়ে ওঠে।

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ বেগমগঞ্জে পঞ্চম ধাপে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শেষে ফলাফল ঘোষণা করে কেন্দ্র থেকে আসার পথে পুলিশের গাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক এক যুবককে আটক করে পুলিশ। আটককৃত মো. ইসমাইল হোসেন উপজেলার ফাজিলপুর গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে। গত বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার জিরতলী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ফাজিলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

বেগমগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি ইউটিভিকে বলেন, ভোট শেষে ফলাফল ঘোষণার পর ভোট কেন্দ্র থেকে পুলিশের গাড়ি চলে আসার পথে কয়েকজন যুবক পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় পুলিশ ধাওয়া করে এক যুবককে আটক করে। পরে আটককৃত যুবককে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও ভ্রাম্যমাণ আদলতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজমিন আলম তুলি তাকে ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদÐ প্রদান করে। দÐপ্রাপ্ত যুবককে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়।

সাতক্ষীরাপ্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৭-৮ রাউন্ড গুলি ছুড়েছে বলে জানা গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে খাজরা ইউনিয়নের গদাইপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, নবনির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম তার সহযোগী কয়েকজন ইউপি সদস্যকে সাথে নিয়ে গদাইপুর গ্রামে অসুস্থ এক কর্মীকে দেখতে যাচ্ছিলেন। এসময় পরাজিত প্রার্থী অহিদুল ইসলামের বাড়ির ছাদের ওপর থেকে তাদের লক্ষ করে গুলিবর্ষণ করা হয়। দফায় দফায় গুলির মুখে এলাকাজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় কমপক্ষে ২০ জন আহত হন। আহতদের চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম, রাসেল, সালাম মোল্লা, আসলাম, টুকু, ইমাম গাজী, মোল্লা সিরাজুল, আফসার আলী ও হান্নান মোল্লার নাম জানা গেছে।

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পরাজিত মেম্বার প্রার্থী মালেক মালতকে পিটিয়ে হত্যা করেছে একই ওয়ার্ডের অপর পরাজিত মেম্বার প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন মালত ও তার সমর্থকরা। নিহত মালেক মালত ওই ইউনিয়নের মুন্সীকান্দি গ্রামের মৃত কছর আহম্মেদ মালতের ছেলে। এদিকে উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ২২নং দুলুখন্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সাংবাদিকদের অবরুদ্ধ করে গুলি ও বোমা হামলা ও দুটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় নড়িয়া থানায় মামলা করা হয়েছে। ভোট কেন্দ্রে সন্ত্রাসী হামলা, ব্যালট পেপার ও নির্বাচনী কাজে ব্যবহৃত সামগ্রী ছিনতাইয়ের ঘটনায় ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার বাদী হয়ে থানায় আরো দুটি মামলা করেছে।

সিরাজদিখান প্রতিনিধিঃ সিরাজদিখানে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হামলা, ভাঙচুর ও আহতের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার লতব্দী ইউনিয়নের আনারস প্রতীক নিয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হাফেজ মো. ফজলুল হকের সমর্থকরা পরাজিত নৌকা ও মোটরসাইকেল সমর্থকদের বাড়ি-ঘরে হামলা ও ভাঙচুর করেছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় টেঁটাবিদ্ধ অন্তঃসত্ত¡া নারীসহ ৩ জন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৯ জন আহত হয়েছে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয় এবং গুরুতর আহত ২ জনকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

আদমদীঘি প্রতিনিধিঃ পঞ্চম ধাপে বিভিন্ন ঘটনার মধ্যে দিয়ে বগুড়ার আদমদীঘিতে ৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন চলাকালীন সময় উপজেলার ছাতিয়ানগ্রম ইউপির আন্তাহার মাদরাসা কেন্দ্রে জাল ভোট দিতে গিয়ে মানিক ও মাসুদ রানা নামের দুই যুবকে ভ্রাম্যমাণ আদালত এক মাস করে কারাদন্ড এবং ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন অনাদায়ে আরোও ১ মাস কারাদন্ডের আদেশ প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদমদীঘি উপজেলা এসিল্যান্ড মাহবুবা।

এছাড়াও বড় আখিড়া বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকার ব্যাচ না পরায় বহিরাগতদের হামলায় ফাইম, সৈকত, সোহামসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে।